আবারও বাড়ছে নদ-নদীর পানি, আতঙ্কে বানভাসিরা

প্রকাশিত: ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০২০

আবারও বাড়ছে নদ-নদীর পানি, আতঙ্কে বানভাসিরা

দেশের বিভিন্ন স্থানে আবারও নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে করে প্লাবিত হচ্ছে নিম্নাঞ্চলের ঘরবাড়ি। একইসঙ্গে দীর্ঘদিন দুর্ভোগে থাকা বানভাসিদের মাঝে দেখা দিয়েছে আতঙ্ক।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, তিস্তা, যমুনা, ব্রহ্মপুত্র ও ঘাঘটসহ সবগুলো নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে তৃতীয় দফা বন্যার আশঙ্কা করছেন উত্তরের জেলা গাইবান্ধার বন্যার্তরা। ঘরবাড়ি থেকে পানি নেমে যাওয়ার পর ঘরে ফিরতে শুরু করেছিলেন তারা। কিন্তু আবারও পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দীর্ঘদিন দুর্ভোগে থাকা মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

উজানে পাহাড়ি ঢলের কারণে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি অব্যাহতভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার ৫টি উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা ছাপিয়ে প্রবেশ করছে বানের পানি। চতুর্থ দফায় গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার শহর রক্ষা হার্ড পয়েন্টে ৩ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

যে কারণে কাজিপুর, এনায়েতপুর, বেলকুচি, শাহজাদপুর, চৌহালী ও সদর উপজেলার কয়েকশ গ্রাম বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। চৌহালীর সদিয়াচাঁদপুর ইউনিয়নের বেতিল, বিনদহ, দেওয়ানতলা এবং মাঝগ্রামের অর্ধ শত ঘরবাড়িতে কিছুটা পানি প্রবেশ করায় নানা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে ভুক্তভোগীরা।

যমুনার সাথে পাল্লা দিয়ে এর শাখা নদী করতোয়া, হুরাসাগর, আত্রাই ও গুমানী নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এখানেও সবার মাঝে বন্যা আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

এদিকে, ঢাকার কাছে গাজীপুরে নদ-নদীর পানি কমছে ধীরগতিতে। ফলে দুর্ভোগ কমেনি কালিয়াকৈর উপজেলার বন্যা কবলিত এলাকায় মানুষের। এখনও অনেক এলাকায় জলাবদ্ধতা রয়ে গেছে, তলিয়ে আছে গ্রাম অঞ্চলের রাস্তাঘাট।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ